রসময়ীর ষষ্ঠী

ষষ্ঠীর সন্ধ্যে। আকাশপাতাল ভাবতে ভাবতে রসকদমে কামড় বসাল রসময়ী। ক্ষীরের খোলের ভিতর ছোট্ট গোলাপী রসোগোল্লা সত্যিই মন সব দঃখ-কষ্ট ভুলিয়ে দেয়….. সম্রাটকে না পাওয়ার দুঃখ, কোনো পরীক্ষায় হায়েস্ট না পাওয়ার দুঃখ, দুপুরের ঘুম ভেঙে যাওয়ার দুঃখ, ম্যাডক্স স্কোয়ারের আড্ডাবাজিতে পাত্তা না পাওয়ার দুঃখ, নতুন কাঞ্জীভরমে কফি পড়ে যাওয়ার দুঃখ, ফুচকার আলুমাখা পছন্দসই না হয়ার দুঃখ, প্রোমোশন আটকে যাওয়ার দুঃখ, সিকিম ট্যুর বাতিল হওয়ার দুঃখ, ষষ্ঠীর সকালে রাধাবল্লভী না খাওয়ার দুঃখ…রসময়ীর মনে হয় ইহলৌকিক জীবনে একসাথে খান দশেক রসকদম খাওয়ার সুখ পারলৌকিক সব সুখকে আতক্রম করতে পারে! হঠাৎ ওর মনে পড়ে থালার সব মিষ্টি ও একাই খেয়ে ফেলেছে!!
“সবাই এখন নিশ্চয়ই খুব মাঞ্জা দিয়ে সাজছে নয়ত ঠাকুর দেখতে বেরিয়েছে নয়ত আড্ডা দিচ্ছে। আর আমি কি সুন্দর একথালা সুস্বাদু রসকদম একা একা সাবাড় করছি…ঠিক দুর্গতিনাশিনীর পিছনদিকে বসে” হেসে ফেলে রসময়ী।

চিরন্তন নই

হে প্রিয়,

শুধু এটুকু মনে রেখো যে আমরা চিরন্তন নই,

চাঁদ-সূর্য চিরন্তন, ঝড়-বৃষ্টি চিরন্তন,

পর্বতের মাথায় লালরঙা সূর্যোদয়, নদীর বুকে পাথর, পাখির পরিত্যক্ত বাসা চিরন্তন,

চিরন্তন এমনকি আমাদের দুঃখের জীবনযাপনটুকুও,

তবু আমরা চিরন্তন নই, হব না কোনওদিন…

আমাদের গল্পটা রোজনামচা হওয়ার আগে, অভ্যাস হয়ে ওঠার আগে,
প্রাত্যহিক হয়ে ওঠার আগেই ভেঙে দেব সব,

ভেঙে গুঁড়িয়ে দেব আমাদের যৌবনযাপন, প্রিয় আসবাব,

ফেলে দেব রঙিন পালক, পুঁতির হার, বইয়ের ভাঁজে শুকনো হয়ে যাওয়া গোলাপ,

কোনও খবর রাখব না তোমার প্রিয় বাঁশির, দেয়ালে ঝোলানো বাবুইয়ের বাসাটার,

যাওয়ার আগে ঝোলায় পুরে নেব আদরের “গীতবিতান”, মনভোলানো “সঞ্চয়িতা”

তোমার জন্য রেখে যাব “কালের মন্দিরা”, শঙ্খিনীর উপাখ্যান,

রেখে যাব গোধূলির শেষ আলোটুকু,

রেখে যাব মেঘলাদিনের শেষ বৃষ্টিটুকু!!

তাই তোমার আমার আর রূপকথা হওয়া হবে না,

আমি মুহূর্ততেই বেঁচে নেব সবটুকু বাঁচা,

মনে রাখব বসন্ত উৎসব, হলুদ-গোলাপি আবিরের লোকনৃত্য

মনে রাখব অষ্টমীর সকালের নরম রোদ, একসাথে অঞ্জলি,

মনে রাখব রবীন্দ্রজয়ন্তীতে করা প্রেম,

হিন্দোলযাত্রায় একসাথে চলা,   

মনখারাপি আষাঢ়ে বর্ষামঙ্গল শোনা…

তাই আমাদের গল্পটা ডাল-আলুপোস্ত হওয়ার আগে,

মাছবাজার হওয়ার আগে, সংসার হয়ে ওঠার আগে

ভুলে যাব এই প্রেমযাপন, এই বৃষ্টিভেজা, এই গঙ্গার হাওয়া!!

তোমায় মনে করব কালবৈশাখীতে

মনে করব শেষবিকেলের কমলা আলোয়, কোনএক নবমীর সকালে,    

মনে রাখব গ্রিক ট্র্যাজেডিতে,

মনে রাখব নর্ডিক রূপকথায়,

মনে রাখব গিটারের স্বরে,

তবু আমাদের গল্পটাকে কিছুতেই প্রাত্যহিক হতে দেব না!!

 

©জয়ী 

It’s not a past

Past (adj.)

You are not your past
you are not what you’ve gone through
you are not your past mistakes or flaws…

So do people say? Past has a poignant significant in our daily life.

A nation without an envious past is probably illiterate or dying inside.
A family without a past is hated by all.
A kingdom without a past was a kingdom of darkness.

Even devil has a past. Most of the devils were once the angels. A slave was once a king.

You must have a past; you are almost nothing without a past. You must build a bright future but never overlooking your past; your past is your second skin, it is like an invisible tattoo; no matter what you do, you can’t erase it.

Philosophy says past is nostalgia. Most of us believe past is a maze and we should concentrate in present. But truly, past is a bit of looking back to look ahead.

Everyone pretends to be happy

Everyone pretends to be happy

Everyone says ‘I’m fine’

Everyone shows he/she is happy with job, salary, fiancé

Everyone says he/she is in the same page with lovers, friends, family

Everyone gives effort to be beautiful

Everyone spends time and money to be fair

Everyone keeps the smile curve on face

Sadly,

No one is happy with his/her life

No one is watching the sunny sky

No one is okay with parents or lovers

Everyone is complaining about his/her life

Everyone is broken, sad, sceptic

No one is trying to break the false façade

No one is showing the real self

No one is confiding

No one can go with the idea of being poor

No one can tolerate the idea of being obsolete or oddball

This is the society we live in. we always perform like actors. We forget to be the real one.